ভোলার লালমোহনে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের অভিযোগ

ভোলার লালমোহনে বাসা থেকে টাকা চুরির অপবাধে আজমী (১০) নামে এক স্কুল শিক্ষার্থীকে দুই হাত ঘরের খুঁটির সঙ্গে বেঁধে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নের পাঙ্গাশিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী আজমী উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ গ্রামের মো. মহসিনের ছেলে। সে পশ্চিম চরউমেদ ১ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আজমী বলেন, ‘সকালে একই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোহিন তাকে খেলার কথা বলে বাসায় নিয়ে যায়। খেলার এক পর্যায়ে মহিনের বাবা বাহার তার ৮০০ টাকার মধ্যে ৫০০ টাকা না পেয়ে আমি চুরি করেছি বলে সন্দেহ করেন। তিনি আমাকে তার ঘরের খুঁটির সঙ্গে বেঁধে মারধর শুরু করেন এবং টাকা ফেরত চান। আমি টাকা নেয়নি বলে চিৎকার করলেও তিনি আমাকে মারতে থাকেন।‘

আজমীরের মা পারভিন বলেন, ‘বাহারের স্ত্রী আমাকে ডাক দেন। আমি সেখানে গিয়ে আজমীরকে হাত বাঁধা অবস্থায় দেখি। হাতের বাধন খুলে তাকে নিয়ে আসি। পরে ওকে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করি।’

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে অভিযুক্ত বাহারের কাছে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আজমী আমার টাকা চুরি করেছে। সে আগেও টাকা চুরি করেছে। আমি ওকে লাঠি দিয়ে ২/৩টি বাড়ি দিয়েছি।’

আজমীর কাছে টাকা পেয়েছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে অভিযুক্ত বলেন, ‘টাকা পাওয়া যায়নি।’

লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, নির্যাতিত শিক্ষার্থী আজমীরের মা থানায় এসেছিলেন। তিনি অভিযোগ দিয়েছেন। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

ফেব্রুয়ারি ২০২৩
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« জানুয়ারি  
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮ 

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।