“টেকসই মৎস্য সম্পদ বিনির্মাণে নারীর অংশগ্রহণ ও উন্নয়ন আবশ্যক” শীর্ষক সভা অনুষ্ঠিত

ইয়াছিনুল ঈমন, আমাদের ভোলা।

ভোলায় নারীদের টেকসই মৎস্যসম্পদ বিনির্মাণে নারীর অংশগ্রহণ এবং নারীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন আবশ্যক সভা অনুষ্ঠিত। রবিবার সকালে ভোলা কোস্ট ট্রাস্ট এর আয়োজনে ভোলা ব্যবস্থাপনা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।
কোস্ট ট্রাস্ট কর্মকতা সোহেল মাহমুদ এর সঞ্চালনায় উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকতা আসাদুজ্জামান এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা মৎস্য কর্মকতা আজহারুল ইসলাম।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা কৃষি কর্মকতা রিয়াজুল ইসলাম, প্রাণী সম্পদ কর্মকতা ডাক্তার দিনেশ চন্দ্র মজুমদার, সহকারী সির্ভিল সার্জন ডাক্তার ফারজানা জুটি, কোস্ট ট্রাস্ট এর সহকারী পরিচালক জহিরুল ইসলাম, ভেদুরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম,মহিলা বিষয়ক কর্মকতা ইকবাল,প্রথম আলোর জেলা প্রতিনিধি নেয়ামত উল্লাহ্, কোস্ট ট্রাস্ট এর জেলা টিম লিডার রাশিদা বেগম ,কোস্ট ট্রাস্ট এর সরকারি সমন্বয়কারী মোঃ সোহেল মাহমুদ প্রমুখ।
কোস্ট ট্রাস্ট এর উদ্যােগে আয়োজিত এই শীর্ষক সভায় বিভিন্ন গ্রামের মৎস্যজীবীর সাথে জড়িত নারী নেত্রীরা উপস্থিত ছিলেন ।এতে ভোলার অর্ধশতাধিক নারী উদ্যোক্তা অংশগ্রহণ করেন। তারা নিজেদেরকে সাবলম্বী হিসেবে গড়ে তুলতে কোস্ট ট্রাস্টের মতো অন্যান্য সংস্থাগুলোকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
কক্সবাজার, ভোলা ও বাগেরহাট এই তিনটি উপকূলীয় জেলা নিয়ে জরীপ কার্যক্রম চালিয়েছে দেশের অন্যতম বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) কোস্ট ট্রাস্ট। প্রতিবেদনটিতে উল্লেখ হয়েছে- কক্সবাজার সদরের খুরুশকুল, পিএমখালী, ভোলা সদরের ধনিয়া, ভেদুরিয়া, বাগেরহাট সদরের শরণখোলার যাত্রাপুর, ষাটগম্বুজ ও সাউথখালীতে বসবাসকারী মানুষের প্রায় ৪০ শতাংশ জেলে। এই অনুপাত কক্সবাজারে ৬৬.৯৯ শতাংশ। জরীপকৃত এলাকার মোট পরিবারের মধ্যে জেলে পরিবারের সংখ্যা ৭৯৯৪ টি, যা প্রায় ৩৯.৭৮ শতাংশ। এবং কক্সবাজার সদরের খুরুশকুলে মোট ১১৪০ পরিবারের মধ্যে ৯৫৫ জেলে পরিবার। পিএমখালীতে ৯৮০ পরিবারে জেলে পরিবারের সংখ্যা ৪৬৫ টি।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুন ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মে    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।