সাপ আতঙ্কে পশ্চিম ইলিশা-রাজাপুরবাসী

জাফর ইকবাল।

ভোলা সদর উপজেলার ৩নং পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নে ও রাজাপুরে ২০ দিনে বিষাক্ত সাপের কামড়ে ২জন নিহত হয়েছেন এবং আহত হয়েছেন ৩ জন। ইলিশা এলাকা থেকে রাছেল ভাইপার উদ্ধার করেছে এক লাকরির দোকান থেকে ও রাজাপুরে এক বসতঘরে পেয়েছে সাপের বাসা সেখান থেকে ৩০/৩৫টি সাপ উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা। বর্তমানে সাপ আতঙ্কে রয়েছে ওইসব এলাকার মানুষ।
সূত্রে জানা যায়, গত (২২ অক্টোবর) ভোলা সদর উপজেলার ৩নং পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের ০৪ নং ওয়ার্ডের মোতাছিন মাঝি বাড়ির মোঃ মোতাছিন মাঝির ছেলে ২ সন্তানের জনক নাছির মাঝি (৩৫) গৃহপালিত পশুর জন্য ঘাস কাটতে গিয়ে এক বিষাক্ত সাপের ছোবলে নিহত হন। তার ৫ দিনের মাথায় গত (২৮ অক্টোবর) রাস্তা দিয়ে হাঁটার সময় হঠাৎ সাপের আক্রমণের শিকার হয়ে নিহত হন তারই প্রতিবেশি ৩ সন্তানের জননী বকুল বেগম (৫০)। তার ১২ দিনের মাথায় আবার ও সাপের কামড়ের শিকার হন স্কুল পড়ুয়া মেয়ে সুমী আক্তার (১১) এবং (১২ অক্টোবর) আবারও এক বিষাক্ত সাপের ছোবলে ঘুমের ঘরে গুরুত্ব আহন হন শাহিন (১৫) নামের এক কিশোর। গত (১১ অক্টোবর) রাজাপুরের ০৮নং ওয়ার্ডের চর মনসা গ্রামের নুরুল মাষ্টার বাড়ির মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম মুন্সির ছেলে শাহীনকে রাত ১১ টার দিকে ঘুমের ঘরে ছোবল দেয় এক বিষাক্ত সাপ।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শাহিন প্রতিদিনের মতো গতকাল রাতেও ঘুমের ঘরে ঘুমাতে যান। ঘুমন্ত অবস্থায় হঠাৎ এক বিষাক্ত সাপ তার বা চোখের উপরে ও নিচে ছোবল দেয়। বর্তমানে শাহিন সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রহেছে বলে জানা গেছে।
ইলিশা জংশন বাজারের এক স্কুল শিক্ষক জানান, হঠাৎ সাপ আতঙ্কে রয়েছি আমরা। আতঙ্ক থাকবে না কেনো, রাছেল ভাইপার উদ্ধার হয়েছে ইলিশা জংশন বাজারের এক লাকরির দোকান থেকে এবং রাজাপুরের ৭নং ওয়ার্ডের এক বাসা থেকে উদ্ধার হয়েছে ৩০/৩৫টি সাপ। এছাড়া গত বছর পুরো জেলায় আলোরন সৃষ্টি হয় রাজাপুরের আরেক বাসায় সাপের বাসা নিয়ে। এই নিয়ে খুব আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন ভোলাবাসী।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুন ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মে    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।