রিটার্ন দা‌খিল সহজ ও সরল হোক

========================
‌ছোট এক‌টি চাকুরী ক‌রি। যা কিছু আয় হয় একজন সুনাগ‌রিক হিসা‌বে রাষ্ট্র‌কে প্র‌য়োজনীয় ট্যাক্স বা কর হিসাব ক‌রে দি‌য়ে থা‌কি প্র‌তি বছর।

আমার মত ‌ছোট চাকু‌রে অ‌নে‌কেই হিসাব বিজ্ঞা‌নের ছাত্র না হওয়ায় প্র‌তিবছর রিটার্ন দা‌খিল করার সময় এ ব্যপা‌রে যারা একটু অ‌ভিজ্ঞ তা‌দের কা‌ছে হন্তদন্ত হ‌য়ে ছুট‌তে হয় ফাইল রে‌ডি করার জন্য।

যা‌দের একটু ট্যাক্স বে‌শি এবং অর্থ‌ বিত্ত বে‌শি তারা অবশ্য উ‌কি‌লের সহায়তা নি‌য়ে রিটার্ন দা‌খিল কর‌তে পা‌রেন এবং অ‌নে‌কেই ক‌রেও থা‌কেন।

আমার মত যাহারা একটু হিসাব কম বো‌ঝেন, ছোট চাকু‌রে বা সাধারণ পাব‌লিক তাদের বু‌ঝি বিরম্বনার আর শেষ নেই।

সরকার বাহাদু‌রের কা‌ছে আমা‌দের মত জনতার অনু‌রোধ দয়া ক‌রে ডি‌জিটাল পদ্ধ‌তি‌তে খুব সাধারণ এক‌টি ‌বোধগম্য সহজ ছ‌ক করুন যা‌হাতে সক‌লে রিটার্ন দা‌খিল কর‌তে পা‌রেন । আর এর একটা ব্যবস্থা করা খুবই জরুরী ব‌লে ভূক্ত‌ভো‌গি হিসা‌বে নি‌জে ম‌নে ক‌রি।

আর এ পদ্ধ‌তিটি য‌দি সহজ ও সরলীকরণ করা হয় তাহলে জনগণ নানা রকম হয়রা‌নি থে‌কে যেমন মু‌ক্তি পা‌বেন ঠিক তেম‌নি করদাতা বা রিটার্ন দা‌খি‌লের প‌রিমানও বাড়‌বে ব‌লে এ সং‌শ্লিষ্ঠ খা‌তের সক‌লে ম‌নে ক‌রেন।

তারপরও আয়, খরচ, ক্ষ‌তি, কর, আয়কর, রিটার্ন বিষয়গু‌লি বল‌তে সহ‌জে যা বোঝায় সে‌টি সহভাগ কর‌ছি।

আয় : আন্তর্জাতিক একাউন্টিং স্টান্ডার্ড বোর্ড (The International Accounting Standards Board, IASB) এর সংজ্ঞা অনুসারে, “আয় হচ্ছে একটি নির্দিষ্ট অর্থনৈতিক সময়ের মধ্যে সম্পদের অন্তঃপ্রবাহ অথবা বৃ‌দ্ধি বুঝায়। এর মাধ্যমে অর্থনৈতিক সুবিধার বৃদ্ধি অথবা দেনা হ্রাস করা, যার ফলে একটা সাম্যভাব বিরাজ করে । এককথায় আয় হচ্ছে খরচ এবং জমানোর সুযোগ । যা কোন নির্দিষ্ট সত্তা দ্বারা এটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে অর্জিত হয়ে থা‌কে যা সাধারণত আর্থিক রাশিতে প্রকাশ করা হয়।

ব্যয় (Cost) হ‌চ্ছে কোনো সম্পদ বা বস্তু বা সুবিধা অর্জনের জন্য প্রদত্ত বা প্রদেয় অর্থ-ই ব্যয়

খরচ (expense) হ‌চ্ছে ব্যয়ের যত টুক অংশের সুবিধা ভোগ (con sume) বা ব্যবহার করা হয়েছে তাহাই খরচ।

ক্ষতি (Loss) হ‌চ্ছে ব্যয়ের যতটুক অংশ অর্জন করতে অর্থ প্রদান করতে হয়েছে কিন্তু কোনো সুবিধা ভোগ বা ব্যবহার করা যায়নি তাই ক্ষতি।

ট্যাক্স হ‌চ্ছে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান বা কোনো লেনদেন হতে সরকার বাধ্যতামূলকভাবে যে অর্থ আদায় করে তাকে বলা হয় কর বা ট্যাক্স।

এক অ‌র্থে কর হ‌চ্ছে যে সমস্ত ব্যক্তির আয় নূন্যতম কর যোগ্য সীমা অতিক্রম করেছে তাদের জন্য রাষ্ট্রকে যে অর্থ প্রদান বাধ্যতা মূলক তাকেই বলা হয় কর। কর বিভিন্ন প্রকার হতে পারে – আয় কর, সম্পদ কর, দান কর, বিক্রয় কর, মূল্য সংযোজন কর, মোটর যানবাহন কর, আমদানি রফতানি কর ইত্যাদি।

তাহ‌লে আয়কর কি?

আয়কর হচ্ছে ব্যক্তি বা সত্ত্বার আয় বা লভ্যাংশরে উপর প্রদেয় কর । আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪ এর আওতায় কর বলতে অধ্যাদেশ অনুযায়ী প্রদেয় আয়কর, অতিরিক্ত কর, বাড়তি লাভের কর, এতদ্ব সংক্রান্ত জরিমানা, সুদ বা আদায় যোগ্য অর্থকে বুঝায়। অন্য ভাবে বলা যায় যে, কর হচ্ছে রাষ্ট্রের সকল জনসাধারনের স্বার্থে রাষ্ট্রের ব্যয় নির্বাহের জন্য সরকারকে প্রদত্ত বাধ্যতামূলক অর্থ।

আয়কর রিটার্ন কি

প্রতি বছর ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ট্যাক্স রিটার্ন দিতে হয়। প্রতি অর্থ বছরে এই সময়ের মধ্যে একটি ফর্মে ব্য‌ক্তি বা প্র‌তিষ্ঠা‌নের আয়, সম্পত্তি, আয়কর ইত্যাদি সম্পর্কিত তথ্য হালনাগাদ করাকে বুঝায়।কেননা সাধারনত এ সম্পর্কিত তথ্য প্রতি বছরই বদলে যায় যা হালনাগাদ করা জরুরী হ‌রে পরে।

অভিযোগ থাকলে কোথায় যাবেন

আপনি যদি মনে করেন কর দেয়ার ক্ষেত্রে আপনার সাথে কোন অন্যায় হয়েছে সেক্ষেত্রে আপনার অভিযোগ জানানোর কর্তৃপক্ষ আছে।

সেক্ষেত্রে আপনার প্রথম করনীয় হচ্ছে কমিশনার অফ ট্যাক্সেজ এর কাছে আপিল করা।

আপনার অভিযোগের ভিত্তিগুলো বিস্তারিত জানিয়ে লিখিতভাবে আপিল করতে হবে।

তিনি শুনানির জন্য সময় দেবেন। তাকে যদি সেখানে যুক্তিতর্ক দিয়ে বোঝাতে সক্ষম হন তাহলে সেখানেই আপনার সমস্যার সমাধান হতে পারে।

তিনি যদি আপনার বিপক্ষে রায় দেন সেক্ষেত্রেও ট্রাইব্যুনালে দ্বিতীয় আপিল করা যায়।

ট্রাইব্যুনালে গিয়েও যদি আপনি হেরে যান তাহলে হাইকোর্টে গিয়েও আপনি সর্বশেষ আরেকবার আপিল করতে
পারবেন।

আর সর্বশেষ তথ্যটি হল ম‌নে রাখ‌তে হ‌বে সরকারের যেসব সুবিধা আপনি পাচ্ছেন তার কিছুই কিন্তু বিনে পয়সায় নয়। আপনার দেয়া অর্থেই আপনি আসলে সেবাগুলো পাচ্ছেন।

প্রতি অর্থ বছর শেষে যে আয়কর দিতে হয় অনেকেই আছেন যে‌টি বেশ দক্ষতার সাথে সেটি সামাল দেন। কিন্তু বহু মানুষ আছেন যারা রীতি মতো হিমসিম খান। তথ্যের অভাবে ভুল করে থাকেন, নানা ঝামেলায় পরেন। এর ম‌ধ্যে যারা নতুন আয়কর দিচ্ছেন তাদের ক্ষেত্রেই সাধারনত বেশি হয়ে থাকে।

এক‌টি দে‌শে সরকা‌রের প‌ক্ষে উন্নত সেবা দেয়া সম্ভব য‌দি না জনগণ সে খর‌চের ভার গ্রহণ ক‌রে অর্থাৎ ব‌র্দ্ধিত ট্যাক্স প্রদান ক‌রে । আমরা ট্যাক্স দি‌তে চাই সরকার বাহাদুরের সং‌শ্লিষ্ঠ বিভাগ যেন আমা‌দের সেবা‌ প্রদা‌নের বিষয়টি নি‌শ্চিত ক‌রেন এটাই চাওয়া।

এক‌টি সহজ সরল ও সিম্পল ফর্ম ও অন লাইন ভি‌ত্তিক জমাদান প্র‌ক্রিয়া এ‌টি নি‌শ্চিত করার জন্য জরুরী ।

লেখকঃ
র‌ফিকুল ইসলাম সরকার (সুপ্তকূ‌ঁড়ি)
(ছড়াকার, কবি, কলা‌মিস্ট, উন্নয়ন কর্মী)

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

নভেম্বর ২০২০
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« অক্টোবর  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০ 

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!