ভোলায় সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত রুবেলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার

ভোলা সংবাদদাতা ॥
ভোলার পরানগঞ্জে দাবীকৃত চাঁদা না দেওয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত মুজাহিদুল ইসলাম রুবেলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা রেফার করা হয়েছে। সিটিস্কীন করার পর তার মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়ায় শনিবার (১২ নভেম্বর) তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকার নিউরো সাইন্স হাসপাতালে রেফার করা হয়।
সন্ত্রাসী হামলায় আহত রুবেলের পরিবার জানায়, সন্ত্রাসী রাহাত, ফরহাদ বাহিনী রুবেলকে রড, কাঠ দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। হামলাকারীরা সন্ত্রাসীরা রুবেলের মাথায় রড দিয়ে প্রচন্ড আঘাত করে। রুবেলকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর ডাক্তার সিটিস্কীন দেন। সিটিস্কীন করানো হলে রুবেলের মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। পরে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার রুবেলকে ঢাকায় রেফার করেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য শনিবার রুবেলকে ঢাকার নিউরো সাইন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে বর্তমানে রুবেলের মাথার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক বলে পরিবার জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য, ভোলার পরানগঞ্জ বাজারের ইলিশা অংশে মুজাহিদুল ইসলাম রুবেল ওয়াশি সূত্রে পাওয়া জমিতে দোকান ঘর নির্মান করে ভোগদখলে ছিলেন। সম্প্রতি রাস্তার পাশে সরকারি ড্রেন নির্মানের কারণে রুবেল তার দোকানঘর ভেঙ্গে অন্যত্র সরিয়ে রাখে। ড্রেনের কাজ শেষ হওয়ার পর বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) রুবেল শ্রমিক নিয়ে উক্ত স্থানে দোকানঘর নির্মান করতে গেলে মিজানুর রহমানের নির্দেশে সন্ত্রাসী আরাফাত রহমান রাহাত, মোঃ ফরহাদ, ওয়াইবুর রহমান রুবেলের কাছে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। দাবীকৃত চাঁদা না দিলে রুবেলকে সেখানে দোকানঘর উত্তোলন করতে দিবে না বলে প্রাণনাশসহ বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দেয় সন্ত্রাসী রাহাত ও ফরহাদ বাহিনী। রুবেল সন্ত্রাসী রাহাত বাহিনীর দাবীকৃত ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দিতে অস্বীকার করে। মোঃ মিজানুর রহমানের নির্দেশে এসময় সন্ত্রাসী আরাফাত রহমান রাহাত, মোঃ ফরহাদ, ওয়াইবুর রহমান আরাত, মাহাবুবুর রহমান এনায়েত ধাড়ালো অস্ত্র, রড, লাঠিসোটা দিয়ে মুজাহিদুল ইসলাম রুবেলকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। সন্ত্রাসীদের রডের আঘাতে রুবেলের মাথা, ঘাড়ে, গালে, পিঠে, রানে, হাতে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম হয়। রুবেলের আত্মচিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলেও সন্ত্রাসীদের ভয়ে তারা রুবলকে উদ্ধার করতে পারেনি। পরে ভোলা থানার ওসি শাহীন ফকিরকে জানালে তিনি এসআই মুকবুলের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টীম ঘটনাস্থলে পাঠান। পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর হামলাকারী সন্ত্রাসী বাহিনী রুবেলর সাথে থাকা নগদ টাকা, মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ভোলা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

ফেব্রুয়ারি ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জানুয়ারি    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।