ভোলায় সংঘর্ষের ঘটনা ভিডিও ফুটেজ দেখে তদন্ত করা হচ্ছে

নিউজ ডেস্ক, আমাদের ভোলা.কম।
ভোলার বোরহানউদ্দিনে সংঘর্ষের ঘটনার ভিডিও ফুটেজে কিছু চেনা মুখের ছবি এসেছে, সেটা ভালোভাবে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
তিনি বলেন, ভিডিও ফুটেজ থেকে কিছু তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। তদন্ত শেষ হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ‘সমসাময়িক বিষয় নিয়ে ডাকা সংবাদ সম্মেলনে’ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
ভোলার বোরহানউদ্দিনে সংঘর্ষের পেছনে শিবির-ছাত্রদলনেতা জড়িত কয়েকটি পত্রিকায় এই ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভিডিও ফুটেজে কিছু কিছু চেনা মুখের ছবি এসেছে এবং সেটা ভালোভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। এ বিষয়ে ফেসবুকের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ চলছে, তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে এ বিষয়টি একটা সুরাহা করা হবে। আন্তর্জাতিকভাবে এটা একটা গ্লোবাল ‘ফেনোমেনো’।
তিনি বলেন, অন্যান্য দেশেও এ সমস্যাটি হচ্ছে, আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতে মাঝেমধ্যে এ ধরনের বিষয়ে ফেসবুক হ্যাকিং নিয়ে সমস্যা হয়। এই বিষয় নিয়ে আমাদের আইসিটি ও ফেসবুক কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ রাখছে।
কাদের বলেন, বোরহানউদ্দিনে সংঘর্ষের ঘটনায় সরকার খুব কঠোর অবস্থানে আছে। এখানে প্রকৃত ঘটনা অনুসন্ধানে, বিভিন্ন পর্যায়ের তদন্ত চলছে ও সঠিকভাবে তদন্ত কাজ সম্পন্ন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন।
তিনি বলেন, যত দ্রুত সম্ভব তদন্তের কাজ সম্পন্ন করে-এই ঘটনায় কোনো ষড়যন্ত্র ও এখানে সাম্প্রদায়িক শক্তির কোনো দুরভিসন্ধি আছে কিনা, সবকিছু খতিয়ে দেখা হচ্ছে এবং তদন্ত শেষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এর আগে বিপ্লবের ফেসবুক আইডিতে এক পোস্টের প্রতিবাদে স্থানীয় লোকজন বিক্ষোভ মিছিল করার সময় পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় তাদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ শুরু হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সংঘর্ষের ঘটনায় মাহাফুজ, মিজান, শাহীন ও মাহবুব নামে চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন সাংবাদিকসহ অন্তত অর্ধশত।
সূত্র – বাংলা নিউজ ২৪.কম

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুন ২০২০
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« মে  
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০ 

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।