চরফ্যাশনে বজ্র নিরোধক তালগাছের বীজ রোপন

এমআবু সিদ্দিক, বিশেষ প্রতিনিধি।

জলবায়ু পরিবর্তনে বজ্রপাতের পরিমান আশংন্কাজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় মৃত্যুসংখ্যা ও জীবনের ঝুঁকি বেড়েছে।বিশ্বে ঘনবসতির দেশে হিসেবে বজ্রপাতের কারনে মৃত্যুর ঘটনা বিশ্বে বাংলাদেশ শীর্ষে। মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে উপকূূলীয় জেলা ভোলার চরফ্যাশনের বিভিন্ন সড়কের পাশে উপজেলা প্রশাসনের উদ্দ্যোগে দুই সহশ্রাধিক বজ্রনিরোধক গভীরমূলী তালগাছের বীজ রোপন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টা ৩০মিঃ এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন আখন। তালবীজ রোপন কর্মমসূচিতে চরফ্যাশন উপজেলা জলবায়ু ফোরাম, শিশু সংগঠন লিটল সিটিজেন্স ফর ক্লাইমেট সহ আরও কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা স্বেচ্চায় অংশগ্রহণ করে।
ক্লাইমেট সদস্যরা চরফ্যাশন-বেতুয়া সড়কের দুইপাশে তালবীজ রোপন করে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন,সহকারী কমিশনার (ভূমি) রিপন বিশ্বাস,উপজেলা স্বাস্হ্য কর্মকর্তা ডাঃশোবন বসাক,প্রেসক্লাব সম্পাদক অধ্যক্ষ মনির আহমেদ শুভ্র,
প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আনিসুর রহমান,জলবায়ু উপজেলা ফোরামের সভাপতি এম আবু সিদ্দিক,সাংবাদিক আমির হোসেন,কামরুল সিকদার,নোমান সিকদার, জামাল মোল্লা,নাজমুল হোসেন মাহাবুব, মিজান নয়ন ও সাহাবুদ্দিন সিকদার প্রমুখ।

প্রধান অতিথি বলেন, “পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বহুতলবৃক্ষে তালগাছে পরিবেশের ভারসাম্য ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় গুরুত্ব অপরিসীম। তালগাছ বজ্রপাতের ঝুকি কমায় এবং টর্নেডো বাতাস থেকে রক্ষা করে।
জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব ও বৃক্ষ নিধনের কারনে তালগাছের সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে।যার ফলে প্রতিবছর বজ্রপাতে প্রাকৃতিক দূর্যোগে মৃত্যুর হার বাড়ছে ।
এই তালবীজ রোপনের মাধ্যমে আগামী প্রজন্মকে বিরুপ পরিবেশের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে।
উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা বলেন,তালগাছ গভিরমূলী বৃক্ষ।বিশ্বে অনেক দেশে গবেষণায় জানা গেছে আকস্মিক প্রাকৃতিক দূৃর্যোগে বা বজ্রপাতে উপকূলীয় এলাকায় মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি।গবেষণায় আরও জানা গেছে থাইল্যান্ডে তালগাছ লাগিয়ে মৃত্যুর হার কমানো হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।