শেবাচিম হাসপাতালের সামনে হোটেলগুলোতে বাশি-পচা খাবারের গলাকাটা দাম

মামুন-অর-রশিদ, অতিথি প্রতিবেদকঃ

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে খাবার হোটেল গুলোতে চলছে নৈরাজ্য। নিম্নমানের ও বাশিপচা খাবার খাইয়ে গলাকাটা দাম নিচ্ছে একদল অসাধু ব্যবসায়ী। দুর-দুরান্ত থেকে আসা রোগী ও রোগীর স্বজনরা এর প্রতিবাদ করলে হতে হয় লাঞ্চনা ও মারধরের শিকার। এ অবস্থা দীর্ঘদিন যাবত চললেও কর্তৃপক্ষ তেমন কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না।
সম্প্রতি ত্রিশগোডউন সড়কের মুখে থাকা ‘ভোলা হোটেল’ এর মালিক আবুল হোসেন আরেক কান্ড ঘটান। দাম না বলে খাইতে বসায় খাওয়ানোর পরে স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েকগুন বেশী দাম ধরলে শুরু হয় বাকবিতন্ডা। এক পর্যায়ে কাস্টমারকে গালিগালাজের পরে গায়ে হাত তোলেন আবুল হোসেন। নিজেকে স্থানীয় পরিচয় দিয়ে আবুল হোসেন বলেন, পারলে আমার কিছু করিও। এমন অভিযোগ করেন পটুয়াখালীর বড়বিঘাই থেকে আসা হেলাল মৃধা।

এদিকে মেডিকেলের মেইন গেটের সামনে ‘স্টার হোটেল’ এর বিরূদ্ধেও এমন গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাশি-পচা খাবার সামনে দেওয়া হয়, গন্ধ পেয়ে না খেলেও দাম দিয়ে যেতে হয়। প্রতিবাদ করলে হোটেল মালিক রফিক মৃধা ও তার ছেলে কামরুল মৃধা চড়াও হন। নিজেদেরকে জাতীয় পার্টির নেতা পরিচয় দিয়ে ভয় দেখান আগত লোকদেরকে।
অপর একটি হোটেল মালিক কালামের বিরুদ্ধেও এমন অভিযোগ দীর্ঘদিনের।
তবে ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষের আর্তনাদ আমালে নিচ্ছেন না কেউ। স্থানীয় সচেতন ব্যক্তিরা বলেন, বিএমপি, ভোক্তা অধিকার, এপিবিএন, বিসিসি সহ সংস্লিষ্ট দপ্তরগুলো এসব নৈরাজ্যের বিরূদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিৎ।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুন ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মে    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।