প্রযুক্তির সাহায্যেই বিয়ারের সঙ্গে কথা বলেছেন নরেন্দ্র মোদি

নিউজ  ডেস্ক , আমাদের ভোলা.কম।

গত দু-সপ্তাহ ধরে যেখানেই যাচ্ছেন, সেখানেই চর্চা হচ্ছে তার ডিসকভারি চ্যানেলের জনপ্রিয় অ্যাডভেঞ্চার টিভি শো ‘ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড’ এ অংশগ্রহণ নিয়ে। বিশেষ করে প্রশ্ন উঠছে তার সঙ্গে সহ-অভিযাত্রী বিয়ার গ্রিলসের কথোপকথন নিয়ে। গ্রিলস একেবারেই হিন্দি জানেন না। কীভাবে এতগুলো দিন তার সঙ্গে কথাবার্তা চালালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি?

রোববার (২৫ আগস্ট) নরেন্দ্র মোদি তার প্রতি মাসের রেডিও অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’ এ অবশেষে ফাঁস করলেন সেই রহস্য।

প্রসঙ্গত, ডিসকভারি চ্যানেলের ওই বিশেষ অনুষ্ঠানে দেখা গেছে ৬৮ বছর বয়সে এসেও মোদি দিব্য উত্তরাখণ্ডের জিম করবেট জাতীয় উদ্যানের বন্যপথে হেঁটেছেন। ডিঙিতে চড়ে নদী পেরিয়েছেন এবং সেই সময় তিনি ব্রিটিশ সহযাত্রীর সঙ্গে বন্যপ্রাণ সংরক্ষণ এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে কথোপকথন চালিয়েছেন।

শো’র টিজার দেখার পর অনেকেই মোদিকে নাকি প্রশ্ন করেছেন, ‘আপনি হিন্দিতে কথা বলছিলেন এবং বিয়ার গ্রিলস হিন্দি জানেন না। তা সত্ত্বেও এত দ্রুত কথোপকথন চালিয়ে গেলেন কী করে?’

দুই অভিযাত্রীর কথা এডিট করা হয়েছে কিনা সেই নিয়েও জানতে চান অনেকে। এছাড়া শুট করতে মোট কতদিন সময় লেগেছে সেটাও জানতে চেয়েছেন সবাই।

মোদি জানান, প্রযুক্তি এখন এতটাই উন্নত যে আমি হিন্দিতে বললেও টেকনিক্যালি সেটা বিয়ার শুনেছেন ইংরেজিতে। ফলে, কথা বলার সময় কোনও সমস্যা হয়নি এবং যে যার মতো করে কথা বলেছি। তাই সবটাই ভীষণ দ্রুত আর স্বাভাবিক মনে হয়েছে।

প্রথম জীবনে তিনি যে চা-বিক্রেতা ছিলেন অভিযানের সময় বিয়ার গ্রিলসকে সে কথা জানাতেও ভোলেননি মোদি। একই সঙ্গে তিনি জানান তার আধ্যাত্মিক জাগরণ এবং হিমালয় অঞ্চলে একক ভ্রমণের কথাও।

বিয়ার গ্রিলস জানতে চেয়েছিলেন, জীবনে কোনোদিন কোনোকিছুতে মোদি ভয় পেয়েছেন কিনা। উত্তরে তিনি বলেন, জনসভায় যাওয়ার আগে আমার প্রচণ্ড ভয় করতো। কীভাবে জনসাধারণের কাছে পৌঁছাব, কথা বলব, তারা আমাকে কীভাবে নেবেন- এই নিয়ে চিন্তা হতো। কিন্তু আমি সব বিষয়েই সব সময় আশাবাদী। তাই এই সমস্যাও আমি আস্তে আস্তে মিটিয়ে নিয়েই নিজের মতো করেই।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জানুয়ারি ২০২৩
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« ডিসেম্বর  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১ 

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।