ভোলায় দিনমজুরের ঘরে ডাকাতি, ৩ মাসের শিশুকে পানিতে ফেলে হত্যা

কাজী মহিবুল্লাহ আজাদ, আমাদের ভোলা।

ভোলা সদর উপজেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের পাঙ্গাশিয়া গ্রামে মঞ্জুর আলম নামে এক দিনমজুরের ঘরে ডাকাতি করতে গিয়ে পানিতে ফেলে ৩ মাসের এক কন্যা সন্তানকে ডাকাত দল হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার মধ্যরাতে ওই গ্রামের মঞ্জুর আলম ড্রাইভারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনায় নিহত শিশু মঞ্জুর আলম ও শাহনাজ বেগম দম্পতির ২য় মেয়ে মারিয়া বেগম। তাদের ২ বছর বয়সী আরও একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি এনায়েত হোসেন ও তদন্ত (ওসি) আরমান হোসেনসহ পুলিশের কয়েকজন কর্মকর্তা।

পুলিশ ও নিহত শিশুর পরিবার জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে ঘরের সামনের দরজা খুলে ৪ জন ডাকাত ঘরে প্রবেশ করেন। যাদের সকলের শরীর কালো পোশাক দিয়ে ডাকা ছিল। ঘরে প্রবেশ করার বিষয়টি টের পান মঞ্জুরের স্ত্রী শাহনাজ বেগম। একপর্যায়ে ডাকাতরা শাহানাজের হাত-পা ও মুখমণ্ডল বেঁধে ডাকাতি করেন৷ ডাকাতি চলাকালে শাহানাজের ৩ মাসের ঘুমন্ত শিশু মারিয়া সজাগ হয়ে কান্নাকাটি করলে ডাকাতরা তাকে ঘরের পিছনে থাকা পুকুরে ফেলে হত্যা করে ঘরে থাকা ১২শো টাকা ও ১ ভড়ি স্বর্নলংকার নিয়ে ডাকাত দল চলে যায়।

ডাকাত দল যাওয়ার পর কৌশলে শানাহাজ শব্দ করলে ঘরে থাকা তাঁর ঘুমন্ত স্বামী মঞ্জুর আলম ও শানাহাজের শাশুড়ী সজাগ হয়ে পুকুর থেকে শিশু মারিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে।

পরে রাত ৩টার দিকে তাদের ডাক-চিৎকারের শব্দ শুনে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন।

বুধবার সকালে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হলে ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি এনায়েত হোসেন ও তদন্ত (ওসি) আরমান হোসেনসহ পুলিশের কয়েকজন কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ময়নাতদন্তের জন্য শিশুটির মরদেহ নিয়ে যায়। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিশুটির বাবা ও মাকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি এনায়েত হোসেন জানান, ঘটনাটির সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।