চরজহির উদ্দিনে ৩জনকে কুপিয়ে জখম করেছে ভূমিদস্যুরা

বিশেষ প্রতিনিধি।
তজুমদ্দিন উপজেলার চর জহির উদ্দিনে জমিজমাকে কেন্দ্র করে মিজানসহ ৩জনকে কুপিয়ে জখম করেছে ভূমিদস্যু নাসিম বাহিনী। গত শুক্রবার (১৯ জুলাই) সন্ধ্যায় চর জহির উদ্দিনের ফারজানার চরে এ ঘটনা ঘটে। আহতদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে তজুমদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে মিজানের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। বর্তমানে সে পুরুষ সার্জারী ২৪নং বেড়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে মিজানের ভাই রুহুল আমিন জানিয়েছেন।
আহত মোঃ মিজান বলেন, তজুমদ্দিন উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম অজিউল্লাহ জসিম চর জহির উদ্দিনের ফারজানা চৌধুরী রতœার চরে ৩ বছর আগে আমাকে দুই দাগে ৮০ শতাংশ জমি চাষাবাদের জন্য দেন। সেই জমিনে আমি চাষাবাদ করে আসছিলাম। জসিম চেয়ারম্যান মারা যাওয়ার পর তার ভাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ নাসিম হাওলাদার কিছু না জানিয়ে জোরপূর্বক আমার ১ দাগের জমি চরফ্যাশন উপজেলার ভূমিদস্যু মোঃ অলির কাছে বিক্রি করে দেয়। আমি উক্ত জমিনে চাষাবাদ করার জন্য গেলে নাসিম ও অলি আমাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছিলো। গত শুক্রবার (১৯ জুলাই) আমি লোক নিয়ে ২য় দাগের জমি চাষাবাদ করার জন্য প্রস্তুত করছিলাম। খবর পেয়ে সন্ধ্যার দিকে ভূমিদস্যু নাসিম হাওলাদারের নেতৃত্বে মোঃ অলি, স্বপন ডাকাত, সাফু ডাকাত, হারুন সহ প্রায় ১০/১২জনের একটি বাহিনী দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে আমাকে এলোপাথারী কুপিয়ে জখম করে। আমার কাজের লোক জুয়েল, নিরবকেও মারধর শুরু করে। এক পর্যায়ে তারা জীবন বাচাতে নদীতে ঝাপ দেয়। আমার সাথে থাকা প্রায় ২৬ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় নাসিম বাহিনী। পরে লোকজন খবর পেয়ে আমাকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে তজুমদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করে। আমার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার আমাকে ভোলা সদর হাসপাতালে রেপার করে। আমার সাথে থাকা জুয়েল ও নিরবকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।
এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে মিজানের ভাই মোঃ রুহুল আমিন জানিয়েছেন। তিনি জানান, ভূমিদস্যু নাসিম ও অলি সন্ত্রাসী নিয়ে আমার ভাইকে চরে কুপিয়ে জখম করেছে। এখন তারা আমাদেরকে মামলা না করার জন্য বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছে। আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক সঠিক বিচার দাবী করছি।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক চরবাসী জানান, ভূমিদস্যু নাসিম হাওলাদার চরের জমি দখল করে নিজের রাম রাজত্ব কায়েম করছে। নাসিম হাওলাদার ভূমিদস্যু অলিকে নিয়ে চরের মানুষের কাছ থেকে চাঁদাবাজী করে আসছে। চাঁদা না দিতে পারলে তাদের উপর নির্যাতন চালান ভূমিদস্যু নাসিম বাহিনী। চর জহির উদ্দিনের চরগুলোতে তার কথা মতো সব কিছু হয় বলে চরবাসী জানিয়েছেন। তাকে চাঁদা না দিয়ে এ চরের কেউ কিছু করতে পারছে না। ভূমিদস্যু নাসিম ও অলি বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে চায় সাধারণ চরবাসী।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নাসিম হাওলাদার ও মোঃ অলির সাথে একাধিকার যোগাযোগ করার চেষ্টা করে কাউকে পাওয়া যায়নি।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

নভেম্বর ২০১৯
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« অক্টোবর    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।