ভোলায় “অগ্রগতি পর্যালোচনা ও কার্যক্রম অব্যাহত রাখার কৌশল নির্ধারণ” শীর্ষক সভা অনুষ্ঠিত

ইয়াছিনুল ঈমন, সম্পাদক আমাদের ভোলা।

কোস্ট ফাউন্ডেশন কর্তৃক পরিচালিত জন-প্রতিষ্ঠানসমূহে নাগরিকদের অংশগ্রহণ প্রকল্পের ধারাবাহিক কার্যক্রমের ফলে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে উল্ল্যেখ করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা বলেন, ইউনিয়ন পরিষদগুলো এখন রাজস্ব বাড়াতে বাৎসরিক কর আদায়ে জোর দিচ্ছে, জনগণের অংশগ্রহণের মাধ্যমে ওয়ার্ড উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবং জনমতের ভিত্তিতে বার্ষিক বাজেট প্রণয়ন করা হচ্ছে, পঞ্চ বার্ষিক পরিকল্পনা করা হচ্ছে, সরকারি-বেসরকারি সকল উন্নয়ন সংস্থাগুলোকে সাথে নিয়ে সমন্বয় সভা করা হচ্ছে এবং নোটিশ বোর্ড ও ওয়েবসাইটগুলো নিয়মিত হালনাগাদ করা হচ্ছে, ফলে, ইউনিয়ন পরিষদের সেবার মান ও জবাবদিহিতা অনেক বেড়েছে। এছারাও তারা কোস্ট প্রকল্পের চলমান কার্যক্রমগুলো অব্যাহত রাখার কৌশল নিয়ে নিজেদেও মতামত ও অঙ্গীকার ব্যাক্ত করেন এবং স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালী, কার্যকর ও স্বাবলম্বী করতে নিজেদের সংগঠনিক সক্ষমতা বাড়ানোর প্রতিও গুরুত্বারোপ করেন।

গত ২৭জুন ২০২২, কোস্ট ভোলা সেন্টারে অনুষ্ঠিত প্রকল্পের “অগ্রগতি পর্যালোচনা ও কার্যক্রম অব্যাহত রাখার কৌশল নির্ধারণ” শীর্ষক সভায় প্রকল্পের কর্ম এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সচিবরা এই মতামাত ব্যাক্ত করেন, তারা বলেন দরিদ্রবান্ধব স্থানীয় সরকরার ব্যাবস্থা শক্তিশালী করার জন্য দীর্ঘ সময় আমাদের সাথে প্রকল্পটি কাজ করেছে, আমরা চাই প্রকল্পটি আরো সময় আমাদের সাথে কাজ করুক। জেলা নাগরিক ফোরামের সভাপতি জনাব নুরুল ইসলামের সভাপতিত্ত্বে ও প্রকল্প ফোকাল এম. এ. হাসানের সঞ্চালনায় উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ডক্টর তোফায়েল আহমেদ। এছারাও জেলা নাগরিক ফোরামের সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ সাফিয়া খাতুন, সহ-সভাপতি মামুনুর রশীদ, সদস্য মোকাম্মেল হক মিলন সহ কর্মএলাকার ইউপি চেয়ারম্যান, সচিব ও বিভিন্ন পর্যায়ের নাগরিক ফোরামের নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি সহ প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সকল কর্মীরা অংশগ্রহণ করেন। প্রকল্প সমন্বয়কারী ফজলুল হকের শুভেচ্ছা বক্তব্যের পর মূল প্রবন্ধ উপস্থপান করেন প্রকল্পের মনিটরিং অফিসার মনিরুজ্জামান, তিনি প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি, অর্জন, প্রতিবন্ধকতা ও চলমান কার্যক্রম অব্যাহত রাখার সুপারিশসমূহ তুলে ধরেন। উপস্থিত চেয়ারম্যানদের মধ্যে চরসামাইয়া ইউপি চেয়ারম্যান জনাব মহিউদ্দিন মাতাব্বর, ইলিশা ইউপি চেয়ারম্যান, আনোয়ার হোসেন ছোটন, ভেদুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান, মোস্তফা কামাল, উত্তর দীঘলদী ইউপি চেয়ারম্যান, লিয়াকত হোসেনে মনসুর, মেদুয়া ইউপি চেয়ারম্যান, মনজুর আলম, সৈয়দপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল মালেক মাষ্টার, উত্তর জয়নগর ইউপি চেয়ারম্যান, মোঃ বশির এবং লালমোহন উপজেলার লর্ড হার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আবুল কাসেম মিয়া প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ডঃ তোফায়েল আহমেদ ইউনিয়ন পরিষদের প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা উন্নয়নে প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন বাংলাদেশের স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর অবস্থা সংকটাপন্ন, আর এই সংকট থেকে উত্তরনের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকেই এগিয়ে আসতে হবে,সেটা হতে হবে সংঘবদ্ধভাবে এবং নিজস্ব সংগঠনিক সক্ষমতার মধ্য দিয়ে, কোন প্রকল্প বা দাতা সংস্থার দ্বারস্থ হয়ে নয়। তিনি আরো বলেন স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর বিভিন্ন স্তরের সমস্যাগুলোকে প্রথমে চিহ্নিত করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় নীতিমালা ও সংস্কারের জন্য ধারাবাহিকভাবে নিজেদের উদ্যোগেই মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করতে হবে।

 

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুন ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মে    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।