মুক্তিযোদ্ধা সংসদের দ্রুত নির্বাচনের দাবিতে ভোলায় সমাবেশ

মোঃ সালাহউদ্দীন , আমাদের ভোলা।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ডসহ জেলা উপজেলা পর্যায়ের প্রতিটি ইউনিটে অতি দ্রুত নির্বাচনের দাবিতে দুপুরে ভোলা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ডের সাবেক ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বীরমুক্তিযোদ্ধা সফিকুল বাহার টিপু। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আজ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সুসংগঠিত।

বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য অনেক কিছু করেছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছেন। কিন্তু দীর্ঘ দিন নির্বাচন না হওয়ায় ২০১৭ সাল থেকে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মূলত অকার্যকর হয়ে পড়েছে। কেন্দ্র থেকে শুরু করে উপজেলা পর্যায়ের প্রতিটি ইউনিট আজ অচল প্রায়। অথচ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিটি উপজেলা পর্যায়েও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য পাকা ভবন করে দিয়েছেন। এই মুক্তিযোদ্ধা সংসদকে সক্রিয় করার জন্য অতিদ্রুত কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ জেলা উপজেলা পর্যায়ের সকল ইউনিটের নির্বাচনের ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক এই নেতা।

অনতিবিলম্বে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবিতে বুধবার দুপুরে ভোলা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ের হলরুমে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নেতৃবৃন্দের নিয়ে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা সফিকুল বাহার মজুমদার টিপু।

ভোলা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার দোস্ত মাহমুদের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের সাবেক চিফ ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর, ভোলা প্রেসক্লাবের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা এম. হাবিবুর রহমান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার শফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার সেলিম জমাদ্দার, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমীর হোসেন বাচ্চু, বোরহানউদ্দিন উপজেলার সাবেক কমান্ডার আসমত আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: জুলফিকার আলী, আব্দুল খালেক, আব্দুস সাত্তার খান, মো: মানিক প্রমূখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা সফিকুল বাহার টিপু আরও বলেন, দীর্ঘ দিন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কোন কমিটি নেই। জেলা উপজেলা এবং কেন্দ্র কোন পর্যায়েই কমিটি নেই। কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলসহ জেলা উপজেলা পর্যায়ে প্রশাসক নিয়োগ করা হয়েছে। এতে মুক্তিযোদ্ধাদের কোন কার্যক্রম নেই। এখন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের অফিসগুলো বোবার মত দাঁড়িয়ে কান্নাকাটি করছে। কোন মুক্তিযোদ্ধা মারা গেলে কেবল রাষ্ট্রীয়ভাবে দাফন করা হয়। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে আর কোন কাজ নেই। মুক্তিযোদ্ধাদের কাল্যানমূলক কোন কাজ করতে হলে জেলা উপজেলা পর্যায়ের প্রশসনের সাথে যোগাযোগ করতে হয়। এসব কারণে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মূলত ঝিমিয়ে পড়েছে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কার্যক্রম স্থগিত হয়ে গেছে। এই স্থবিরতা কাটিয়ে আবারও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কেন্দ্র থেকে উপজেলা পর্যায়ের প্রতিটি ইউনিটকে সক্রিয় করে গড়ে তোলার জন্য দ্রুত নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। এ জন্য তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের শেষ আশ্রয় স্থল জননেত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কামিটি গঠনের জন্য নির্বাচন কমিশন গঠন করে দিয়েছেন। কিন্তু সেই নির্বাচন কমিশন কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না। নির্বাচনের কোন লক্ষন দেখা যাচ্ছে না। এতে সারা দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। সারা দেশের মুক্তিযোদ্ধারা সংগঠিত হচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নির্বাচনের দাবি আদায়ের জন্য জেলা উপজেলা পর্যায়ে সভা সমাবেশের আয়োজন করা হচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নির্বাচনের দাবিতে অচিরেই জাতীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধান অতিথি করে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে মহাসমাবেশের আয়োজন করা হবে।

পরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের সুস্থতা কামনা করে দোয়া মোনাজাতের আয়োজন করা হয়।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

মে ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« এপ্রিল  
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১ 

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।