লালমোহনের মেঘনায় ইটভাটার শ্রমিকদের নিয়ে বিপাকে ট্রলার 

আওলাদ খানঃ আমাদের ভোলা.কম।

সারাদেশ যখন মহামারী আতংকে ঠিক সেই মহুর্তে ভোলায় কর্মরত খুলনা সাতক্ষীরা অঞ্চলের ইটভাটা শ্রমিকরা তাদের গন্ত্যবে পৌছতে গিয়ে পরতে হচ্ছে নানা বাধার মুখে,সরকার নির্ধারিত সময়ে তারা না যাওয়ায় এই বিপাকে পরতে হচ্ছে বলে মনে করেন শ্রমিকদের অনেকে, ট্রলারের মাঝী রফিক মিয়া জানান গত সোমবার চরফ্যাশন বেতুয়া এলাকার জনতা ব্রিকস ও মাইশা ব্রিকসের প্রায় ২০০ শ্রমিক নিয়ে খুলনার উদ্দ্যেশ্য রওয়ানা দেন তারা কিন্তু পথিমধ্যে ভোলা খেয়াঘাট এলাকায় স্থানীয় প্রশাসন আমাদের আটকিয়ে আগের যায়গায় ফিরে যেতে বলে,তাই প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে আমরা এই যায়গায় তাদের নিয়ে আসছি, পরে সেখানে সাংবাদিক, স্থানীয় ছাত্রলীগসহ এলাকাবাসী তাদের ট্রলার আটক করে, ট্রলারে থাকা শ্রমিকদের তাদের ব্রিকসের লোক এসে নিয়ে যায়, এসময় তাদের মধ্যে কোনো সচেতনতা লক্ষ্য করা যায় নি। ট্রলার আটকের সময় স্থানীয় ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি আরিফ খান জয় সংবাদকর্মীদের জানায়,ভোলা-৩ আসনের মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব নুরন্নবী চৌধুরী শাওন ভাইয়ের নির্দেশে আমাদের এলাকায় বহিরাগত কাউকে ডুকতে না দিতে আমরা সব সময় মাঠে আছি, স্থানীয় সংবাদকর্মী আওলাদ খান আমাকে যখন যানায় যে একটি ট্রলার লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের মধ্যে প্রবেশ করে আমি তাৎক্ষনিক ট্রলারটি আটক করি এবং পরবর্তিতে তাদের ব্রিকসের লোকজন এসে চরফ্যাশনের এরিয়াতে ট্রলার নিয়ে যায়। শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানতে পারি,তারা ব্রিকসের মালীকের চাপে এতোদিন কাজ করতে হয়েছে,তারা প্রশাসনের সাহায্য নিয়ে তাদের বাড়িতে ফিরতে চায়, এলাকাবাসী জানায় স্থানীয় চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মিয়ার নির্দেশ মতে আমরা আমাদের এলাকায় কোনো বহিরাগত প্রবেশ করতে দেইনি,আর দিবো না, আমরা সর্বদা সজাগ আছি।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুন ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মে    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।