চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগে ভোলার মনপুরা ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর  বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক।
মৎস্য ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগে ভোলা জেলার মনপুরা উপজেলার  মনপুরা ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন  আওয়ামীলীগ সভাপতি আমানত উল্লাহ আলমগীরের সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। শুক্রবার স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত পৃথক  প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, ভোলা জেলার মনপুরা ইউপি চেয়ারম্যান মো. আমানত উল্লাহ আলমগীরের বিরুদ্ধে মৎস্য ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে । উল্লেখিত চেয়ারম্যান ও সদস্য কর্তৃক সংঘটিত অপরাধ মূলক কার্যক্রমের প্রেক্ষিতে তাদের দ্বারা ইউনিয়ন পরিষদের ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণে সমীচীন নয় মর্মে সরকার মনে করে। কাজেই স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৪(১) ধারা অনুযায়ী তাদের স্বীয় পদ হতে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হল। একইসময় পৃথক কারণ দর্শানো নোটিশে কেন তাদেরকে চূড়ান্তভাবে তাদের পদ থেকে অপসারণ করা হবে না- তার জবাব পত্র প্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার বিভাগে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়।
উল্লেখ্য ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে ভোলার মেঘনা-তেঁতুলিয়ার ১৯০ কিলোমিটার নদীতে দুই মাস ইলিশ ধরা বন্ধ ছিল। নিষেধাজ্ঞার সময়ে সরকারিভাবে নিবন্ধিত প্রত্যেক জেলেকে চার মাসে ৪০ কেজি করে ১৬০ কেজি চাল দেয়ার কথা ছিল। এর মধ্যে ফেব্রুয়ারি-মার্চে ৮০ কেজি করে চাল দেয়ার কথা। কিন্তু ৩০ কেজি করে চাল দেন ইউপি চেয়ারম্যান আমানত উল্যাহ আলমগীর। জেলেদের অভিযোগের কারনে জেলা প্রশাসকের র্নিবাহি ম্যাজিস্টেট সরেজমিনে মনপুরা গিয়ে তদন্ত করে আসেন।
এ ছাড়া চেয়ারম্যান আমানত উল্যাহ আলমগীরের বিরুদ্ধে জেলেদের কাছ থেকে চাদাবাজীর অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে বরখাস্তকৃত চেয়্যারমান আলমগীরের সাথে মোবাইল ফোনে কয়েকবার যোগাযোগের চেস্টা করে ও সম্ভব হয়নি

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুন ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মে    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।