ভোলায় বীরশ্রেষ্ঠ মোহাম্মদ মোস্তফার শাহাদাত বার্ষিকীতে বদ্বীপ ফোরামের সংবাদ সম্মেলন

মোঃ আরিয়ান আরিফ: : ভোলা

স্বাধীনতাযুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বপূর্ণ অবদান জানিয়ে বাংলাদেশ সরকার ৭ জনকে পদক প্রদান করেন। তাদের মধ্যে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোহাম্মদ মোস্তফা একজন। তার পুরো নাম মোহাম্মদ মোস্তফা। কিন্তু কোনো এক সময় ভুল করে তার নামটি মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল হিসেবে অনেকের কাছে প্রচার লাভ করে। এতে তার নাম নিয়ে কিছুটা বিভ্রান্তি লক্ষ্য করা যায়। শুক্রবার বিকেলে ভোলা প্রেসক্লাবে ব-দ্বীপ ফোরামে আয়োজনে এক সংবাদ সম্মেলনে বীরশ্রেষ্ঠ মোহাম্মদ মোস্তফার ভাতিজা মো. সেলিম এসব কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, বীরশ্রেষ্ঠ মোহাম্মদ মোস্তফাই তার নাম। তার নাম কখনও কামাল ছিল না।

তিনি বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের গেজেট ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চাকরির নথিতেও তার নাম মোহাম্মদ মোস্তফা। তবে কোনো এক সময় ভুল করে তার নামটি মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল হিসেবে অনেকের কাছে প্রচার লাভ করে। বর্তমানে বিভিন্ন স্থাপনা এমনকি জাতীয় পাঠ্য পুস্তকেও ভুল নামটি ব্যবহার হচ্ছে। যা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে ভুল হিসেবে উপস্থাপিত হচ্ছে। তাই তিনি বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোহাম্মদ মোস্তফা’র সঠিক নামটি সর্বক্ষেত্রে ব্যবহারের দাবি জানান।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন ভোলা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সামস্ উল আলম মিঠুসহ প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, ভোলা ব-দ্বীপ ফোরামের সদস্য সচিব ইসমাইল হোসেন মুন্না, সদস্য আরিয়ান আরিফ, রাকিবুল হাসান, আরিফসহ ভোলার কর্মরত সাংবাদিকরা ।

উল্লেখ্য, বীরশ্রেষ্ঠ মোহাম্মদ মোস্তফা ভোলার দৌলতখান উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নের হাজিপুর গ্রামের হাবিলদার (অব) হাবিবুর রহমানের ছেলে। বর্তমানে তার মাসহ পরিবারের সদস্যরা ভোলা সদরের আলী নগর মৌ টুপি গ্রামে বাস করছেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« আগষ্ট  
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।