চরফ্যাসনে সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীকে মারধর হুমকি: আসামী গ্রেপ্তারের দাবি

বিশেষ প্রতিনিধি, আমাদের ভোলা।

চরফ্যাসনে প্রবাসীর জমি জবর দখল করতে মারিয়া হয়ে উঠে পৌর শ্রমিকলীগ নেতাসহ তার দলসাঙ্গপাঙ্গরা। গত বৃহস্পতিবার জমি দখলে ব্যর্থ হয়ে সৌদি

প্রবাসীর স্ত্রী ফাতেমা আকতার ও তার ছেলে মোস্তফাকে মারধর করে ব্যাংক থেকে উত্তোলিত টাকা ২লাখ ৫৭ হাজার

টাকা ছিনিয়ে নিয়ে বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর লুটপাটের তান্ডব

চলিয়েছেন। এঘটনায় মামলা দায়ের করে বিপাকে পড়েছেন প্রবাসীর অসহায় পরিবার।

পুলিশ আসামী গ্রেপ্তার না করতে না পারায় অজ্ঞাত স্হান থেকে আসামীরা বাদিকে হুমকি দিচ্ছে।

এখন তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় উল্লেখ করে গতকাল বুধবার দুপুরে চরফ্যাসন প্রেসক্লাবে সাংবাদিক

সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করেছেন।সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসী শাহজাহানের স্ত্রী ফতেমা

আকতার লিখিত বক্তব্য পেশ করেন।

লিখিত বক্তব্যে ফাতেমা জানান, ২০০৩ সনে পূর্ব পরিচিত আলাউদ্দিন ও

শফিউল্লাহর কাছ থেকে জিন্নাগড় মৌজায় তার স্বামী

শাহজাহান মিয়া এসএস ৩২৫ নং খতিয়ানে ৫২ শতাংশ জমি খরিদ করে। বর্তমানে উক্ত খরিদা জমিতে ঘর উত্তোলণ করে ভোগ দখলে

আছি।আমাদের নামে রেকর্ড পর্চাও হয়েছে। অতিসম্প্রতি এই জমির পূর্বের মালিক জমি বিক্রেতা আলাউদ্দিন জমি বন্টনের

হিস্যা নিয়ে ঝামেলা শুরু করেন। এনিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী ফাতেমা আকতার ২০১৩ সনে বন্টননামা চেয়ে

আদালতে আলাউদ্দিনকে আসামী করে দেওয়ানী মামলা দায়ের করেন।সেই মামলায়

২০১৪ সনে তার স্বামী শাহাজাহানের পক্ষে বিজ্ঞ আদালত রায় প্রদান করেন। কিন্তু

আলাউদ্দিন বিজ্ঞ আদালতের দেয়া রায় উপেক্ষা করে কতিপয় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের দিয়ে আমাদের ভোগদখলীয় জমি থেকে উৎখাতের

যড়যন্ত্রে লিপ্ত হন। বাড়ি থেকে উচ্ছেদের হুমকি দামকি দেন।

গত বৃহস্পতিবার সকালে সৌদি থেকে পাঠানো স্বামীর ২লাখ ৫৭ হাজার টাকা

ব্যাংক থেকে উত্তোলন করে বাড়ি ফেরার পথে আমার ছেলেকে রাস্তায় মারধর শুরু করে।আমি টাকাসহ রিক্সা থেকে নামার পরে আমাকেও ভুট্রুো সহ তার লোকজন মারধর করে ব্যাংক থেকে উত্তোরিত টাকা ছিনিয়ে যায় এই ঘপনার নেপথ্যে আলাউদ্দিনের

নির্দেশ রয়েছে। পরে আমি বাদি হয়ে মোঃ ভুট্টোু

আলআমিন, মোর্শেদ হোসেনসহ কয়েকজন আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করি।

আমাকে মারধরের আগে দুর্বৃত্তরা আমার জমিতে কথিত মালিকানাদাবী করে সাইন বোর্ড ঝুলানো চেষ্টা করলে আমার ছেলে

বাধা দিলে তাকে এলোপাতারি মারধর করে গুরুতর জখম করে।আমিসহ আমার ছেলে দীর্ঘদিন হাসপাতলে চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জানান,গত ২৭ ফেব্রুয়ারী ফাতেমা

বাদী হয়ে তিন জনকে আসামী করে মারধর ও টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগে

চরফ্যাসন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামীরা পলাতক রয়েছে। িাদি দাবি করছে আসামীরা

গ্রেপ্তার না হওয়ায় অজ্ঞাত এলাকা থেকে তাদের কে অব্যহতভাবে হুমকি দামাকি দিচ্ছে।ফলে তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

চরফ্যাসন থানার ওসি মো. মনির হোসেন মিয়া জানান, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

জুলাই ২০২৪
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« জুন    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।