তজুমদ্দিনে শিক্ষককে অপহরনের চেস্টা, গ্রাম পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার

সাইফুল ইসলাম সাকিব , তজুমদ্দিন প্রতিনিধি, আমাদের ভোলা.কম।

ভোলার তজুমদ্দিনে শম্ভুপুর ইউনিয়নের বোরহানউদ্দিন সিমান্তবর্তী এলাকার মাছের ঘের থেকে চাপড়ী আলিম মাদ্রাসার ইংরেজি শিক্ষক গোলাম ছরোয়ার জুয়েল কে আপহরনের সময় বোরহানউদ্দিনের হাসান নগর সাতবাড়ীয় তেমাথা থেকে দুই গ্রাম পুলিশের সহায়তা উদ্ধার করা হয়েছে। অাহত জুয়েল মাস্টারকে তজুমদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সূত্রমতে জানাযায় : শম্ভপুর ইউনিয়নের গোলাম ছরোয়ার জুয়েল ও হাসন নগর ইউনিয়নের নয়ন চৌধুরীর মধ্যধলী এলাকায় পাশাপাশি কয়েকটি মাছের ঘের রয়েছে। জুয়ের মাস্টারের ঘেরগুলো নয়ন চৌধুরীকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করা হয়। এর সূত্র মতে ধরে শনিবার দিবাগত রাতে সুমন চৌধুরীর নেতৃত্বে চার টি মটোরসাইকেল যোগে মাছের ঘের থেকে জুৃয়েল মাস্টার কে জোরপূর্বক হাত মুখ বেধে অপহরন করে নিয়ে যায়। এ সময় বোরহানউদ্দিনের সাতবাড়ীর তেমাথা মসজিদের কাছে গেলে মুসল্লিদের দেখে জুয়ের মাস্টার মটোরসাইকেল থেকে লাফিয়ে পড়ে ডাক চিৎকার দেয়। জুয়েল মমাস্টার জানান: অপহনের সময় তার কাছ থেকে হুমায়ুন ব্যাপারীর দেয়া ১ লক্ষ টাকা নিয়ে যায়। গ্রাম পুলিশ জিয়াউর রহমান জানান ইশারের নামাজের সময় মসজিদের কাছে চিৎকার শুনে গিয়ে দেখি জুয়েল মাস্টার কে কয়েক জন লোক মারপিট করছে। রতন চৌকিদার সহ লোকজন জড়ো হতে শুরু করলে তারা হুন্ডা যোগে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দিয়ে দেই। খাসমহল পুলিশ ফাঁড়ির এস আই জামাল উদ্দিন জানান : সংবাদ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। লোকজনের কাছে খোজ খবর নিয়ে জানা গেছে দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘ দিন মাছের নিয়ে চাপা উত্তেজনা চলছিল। জুয়েল মাস্টার কে কয়েকটি হুন্ডা যোগে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। আহত অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

এপ্রিল ২০২০
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« মার্চ  
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০ 

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।