তজুমদ্দিনে প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে সরকারী ত্রাণের সামগ্রী ও কম্বল জব্দ

তজুমদ্দিন প্রতিনিধি ॥

ভোলার তজুমদ্দিনে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন থেকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী ও কম্বল উদ্ধার করছেন উপজেলা প্রশাসন। পরে উদ্ধার করা সামগ্রী জব্দ করে প্রশাসনের হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, ২০১৯/২০ অর্থ বছরে ৪নং চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্ধের ৩২ বস্তা ত্রাণ সামগ্রী ও ৪ বস্তা কম্বল আত্মাতের উদ্দেশ্যে ২নং ওয়ার্ডের মধ্য চাঁচড়া প্রাথমিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি রুমে রাখে চাঁচড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিয়াদ হোসেন হান্নান। স্থানীয়রা বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানালে রাত ২টায় তজুমদ্দিন থানার এসআই মনিরুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা বলে মালামালগুলি চৌকিদারের হেফাজতে রাখেন।পরেরদিন শনিবার (৬ ফেব্রুয়ারী) বেলা ১১ টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পল্লব কুমার হাজরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রুম থেকে মালামালগুলি জব্দ করে প্রশাসনের হেফাজতে নেয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে চাঁচড়া ১নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, সরকারী মালামালগুলি ইউনিয়ন পরিষদের না রেখে বর্তমান চেয়ারম্যান আত্মসাতের জন্য মধ্য চাঁচড়া প্রাথমিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি রুমে রাখে। চাঁচড়া ইউনিয়নের ১,২ ও ৩নং ওয়ার্ডের সংরাক্ষিত মহিলা মেম্বার শামছুন্নাহার জানান, ত্রাণের মালামালগুলি গতকাল শুক্রবার ইউনিয়ন পরিষদ বন্ধ থাকায় উপজেলা থেকে এনে স্কুলে রাখা হয়েছে। আত্মসাতের অভিযোগটির রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রনোদিত, মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

মধ্য চাঁচড়া প্রাথমিক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান বলেন, স্কুলের রুমের তালা ভেঙ্গে ত্রাণের মালামালগুলি স্কুলে রাখা হয়েছে। তালা ভাঙ্গার বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে জানানো হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের কোন উত্তর দিতে পারেননি প্রধান শিক্ষক।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নুরুল ইসলাম বলেন, স্কুলের তালা ভাঙ্গার বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি আপনার কাছেই শুনলাম।

চাঁচড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের বলেন, চেয়ারম্যান হান্নান সরকারী মালামাল ইউনিয়ন পরিষদে না রেখে আত্মসাতের জন্য স্কুলের রুমে রাখেন।

চাঁচড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও চাঁচড়া ইউনিয়ন আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ হোসেন হান্নান বলেন, তজুমদ্দিন থেকে আনা ত্রাণের সামগ্রীগুলো বহনকৃত গাড়ীর ড্রাইভার পরিষদ বন্ধ পেয়ে স্কুলের মাঠে রেখে গেলে স্থানীয় ইউসুফ সিকদার মালামালগুলি স্কুলের একটি রুমে রাখেন। আমার প্রতিপক্ষ সাবেক চেয়ারম্যান আবু তাহের মিয়া ও তার বড়ভাই শামছু মাষ্টার রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে এমন নাটক সাজিয়েছেন। তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) এনায়েত হোসেন বলেন, চাঁচড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবু তাহের মিয়া স্কুলের রুমে মালামাল রাখার বিষয়টি জানালে ফোর্স পাটিয়ে ত্রাণ সামগ্রীগুলো চৌকিদারের হেফাজতে রাখা হয়। পরেরদিন উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ত্রাণ সামগ্রী জব্দ করে উপজেলায় নিয়ে আসেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পল্লব কুমার হাজরা বলেন, শনিবার সকালে স্কুলের একটি রুম থেকে ত্রাণের মালামাল জব্দ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

মে ২০২১
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« এপ্রিল  
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১ 

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।