বোরহানউদ্দিনে মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিলের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার।
ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন  উপজেলার বড় মানিকা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান সদ্য আওয়ামীলীগে যোগদান কারী ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা শাজাহান হাওলাদারের বিরুদ্ধে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা ও জোর পূর্বক মানুষের জমি দখলসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন  রাশেদ ও সৈয়দ মালসহ স্থানীয় কিছু বাসিন্দা।
রবিবার সকালে বোরহানউদ্দিন উপজেলার বড় মানিকা ইউনিয়নের একটি বাড়ীতে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সৈয়দ মাল ও রাশেদ বলেন, ২০০১ সালে হাফিজ ইব্রাহীম বাহিনীর কুক্ষাত সাবেক ইউপি সদস্য ও ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা নব্য আওয়ামীলীগার শাজাহান হাওলাদারের অত্যাচারে ভোলা বোরহানউদ্দিন উপজেলার বড় মানিকা ইউনিয়ন এর ৪নং ওয়ার্ডের সাধারন মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।
প্রভাবশালী সাবেক এই বিএনপি নেতা শাহাজান হাওলাদার ১৯৭১ সালে মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহন না করে ও মোটা অংকের টাকার মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তালিকাভুক্ত হন।
তার নামে ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসের ৫ তারিখে বোরহানউদ্দিন থানায় পুলিশের কাজে বাধাদান ও রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপে অংশগ্রহন করার কারনে তৎকালিন বোরহানউদ্দিন থানার পুলিশের উপ পরির্দশক মোঃ তৈয়বুর রহমান বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন যাহার নং ৮/২৮৪ ।
সংবাদ সম্মেলনে সৈয়দ মাল আরো বলেন,শাজাহান হাওলাদার প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা না হয়েও বিএনপির ক্ষমতার আমলে তিনি মুক্তিযুদ্ধের তালিকায় নাম উঠিয়ে দিবে বলে টাকা নিয়ে এলাকার অনেক মানুষের সাথে প্রতারণা করেন ও জাল দলিল করে অনেকের জমি নিজের নামে করে নেন, তার অত্যাচার থেকে তার প্রতিবেশি এমন কি আত্নীয় স্বজনরা ও রক্ষা পায়নি,  ২০০১ সালে আওয়ামীলীগের কর্মীদের উপর নির্যাতনের নেতৃত্ব দিয়েছেন এই শাহাজান হাওলাদার তারই ধারাবাহিকতায় সাবেক বিএনপির নেতা ক্ষমতার প্রলোভনে শাজাহান হাওলাদার তার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কিছুদিন আগে আ’লীগে যোগদান করেন,  তিনি এলাকার বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে চাকুরী দেওয়ার নাম করে অনেক অসহায় লোক কে নিস্ব করেছেন।
সৈয়দ মাল আরো বলেন, মুক্তিযোদ্ধ চলাকালিন শাহাজান এর বয়স ৭/৮ বছর ছিলো আমি তার বয়সে বড় এবং একই জায়গায় বসবাস তাহলে কি ভাবে সে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হয়?
শাজাহান হাওলাদারের মুক্তিযোদ্ধা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গত ২৩/৯/২০১৪ তারিখে মাননীয় মন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রনালয় একটি অভিযোগ দাখিল করেন  গ্রামবাসীর পক্ষে আবু তাহের নামে এক লোক এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় লোক নামে এক ব্যক্তি অভিযোগ দাখিল করেন।
সৈয়দ মাল আরো বলেন, শাহাজান হাওলাদারের মুক্তিযোদ্ধা সনদ সঠিক কিনা তদন্ত করার জোর দাবী জানাচ্ছি এবং ভোলা সদর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদ ও ভোলা -২ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আলী আজম মুকুল, জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও বোরহানউদ্দিন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন,তোফায়েল আহমেদ,আনিচুর রহমান,ইউসুফ,আজিজুল হক,মোছলেম ফরাজী প্রমুখ।
অভিযোগের সত্যতা বিষয়ে জানতে শাজাহান হাওলাদারে  বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা করলেও তাকে পাওয়া যায়নি তবে তার ছেলে জসিম উদ্দিন ও জামাল অভিযোগগুলো অসত্য বলে দাবী করে তারা বলেন পারিবারিক ও জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন আমার বাবার বিরুদ্ধে এসব মিথ্যা অভিযোগ করছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বোরহানউদ্দিন উপজেলার বর্তমান কমান্ডার আহম্মদ উল্লাহ্ বলেন, পারিবারিক শক্রতার কারণেই এই অভিযোগটি বার বার করে শাহাজানের বিরুদ্ধে  দিচ্ছে যা সত্য নয়।
অপর দিকে সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও উপজেলা আ’লীগের সহ সভাপতি আসমত আলী বলেন সংবাদ সম্মেলনের অভিযোগটিই সত্য।

ফেসবুকে লাইক দিন

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০২২
শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
« আগষ্ট  
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

সর্বমোট ভিজিটর

counter
এই সাইটের কোন লেখা অনুমতি ছাড়া কপি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ!
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।